কল্পলোকের নীল পরী

ও ললনা নীল বসনা-
অগ্নি ঝরা ফুল,
মানুষী নও পরী তুমিই
ভাবছে সবাই ভুল।

দেহ তোমার বহতা নদী-
হঠাৎ সরু বাঁক,
ছুটছে সেথায় হাজার বাইচ
হয়ে ঝাঁকে ঝাঁক।

বসন তোমার নীলের মেলা-
অখিল দ্বারের ন্যায়,
তারি বুকে নিটোল বদন
চন্দ্র শোভা পায়।

ওড়না দেখায় সাদা মেঘের-
পাখনা মেলা দুল,
হঠাৎ পাকে আলগা করে
তারায় তারায় ফুল।

কেশ গুলো ঐ বৈশাখী মেঘ-
ঘুরছে চাঁদের পাশ,
মৃদু দুলে ঢাকছে নসিব
হচ্ছি বনবাস ।

চোখের পলক বিজলি আলো-
চমকে ভরায় বুক,
চশমা পরে ঢাকলে তাকে
হারাই সকল সুখ।

ঠোঁটটা তোমার চন্দ্রালোকে-
সিদুর মেঘের রাগ,
নিটোল চাঁদের মধ্যে দেখায়
ছোট্ট সরু ভাগ।

নিমিষ কালো চুলের পাটি-
বিষুব রেখার দাগ,
তার ধারাটি হিয়ায় আমার
জাগায় অনুরাগ ।

তোমায় ঘিরে ভুবন জুড়ে-
ধরছে নানান বেশ,
একটি পলক আড়াল হতেই
শ্বাস যেনো হয় শেষ।

অলিক নিপট গুলছে সদাই-
তোমার রূপের দেশ,
মেললে আঁখি আলগা কেশের
থাকছে সুভাষ রেশ।

455total visits,1visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply