দূর্ণীতি ও দূর্ণীতিবাজ

মানুষ মানুষে এত ভেদাভেদ দেখি বাংলায়,
কেউ দিয়ে যায় নিজের জীবন কেউ রক্ত চুষে খায়।
লাখো শহীদের রক্তে যখন সিক্ত দেশের ভূমি,
ঘাম ঝরিয়ে কৃষক মাঠে দিচ্ছে তাকে চুমি।
ঠিক তখনি হায়নার বেশে জেগে দূর্ণীতিবাজ,
লোভের লালায় বন্যা করে নিয়েছে রাক্ষস সাজ।
কামার কুমার জেলে তাঁতীর তিক্ত শ্রমের দামে,
যে সব টাকা দিচ্ছে দেশে কর ও ভ্যাটের নামে।
খাচ্ছে গিলে হাঙর হয়ে করছে পাচার পরে,
ভিনদেশেতে দরদ বেশি নাই মায়া তার ঘরে।
বাংলাদেশের স্বপ্ন মূলের অঙ্কুরে দেয় বালি,
দেশ মাতাটার শত্রু ওরা দিচ্ছি তাদের গালি।
ওরা বাংলা মায়ের নষ্ট ছেলে কষ্ট বাড়ায় বুকে,
ওদের দ্বারাই গরীব দুখী মরছে ধুঁকে ধুঁকে।
দূর্নীতিবাজ কুলাঙ্গার সে এইনা সোনার দেশে,
নিজের মাকে করছে আঘাত মুখোশ ধারীর বেশে।
ওরা জোট বেঁধেছে বাড়ছে দেশে হচ্ছে বড় দল,
নিয়ম নীতি বন্দী করে দেখায় গায়ের বল।
চলছে অবাধ জবর দখল নদী নালা খালে,
ওদের দ্বারাই শোকের ছাঁয়া নামছে কালে কালে।
গরীব দুখীর আহার রুজি করছে তারা পুঁজি,
যায়না পাওয়া মানবতা তার হৃদয়ে খুঁজি।
বিবেক তাদের মরছে আগেই নৈতিকতা ভুলে,
স্বার্থপরে দেশের সেবা ফেলছে গোটাই গুলে।
ন্যায় বিচারে দিচ্ছে বাঁধা অস্ত্র পেশীর জোরে,
অসহায় আজ দুর্বিপাকে থাকছে বিভোর ঘোরে।
শান্তি সুখের আকাশেতে দূর্নীতির ঐ মেঘে,
ঝরাচ্ছে শোক ঘূর্ণি হয়ে তীব্রতর বেগে।
বীর শহীদদের দেশে এসব কাপুরুষ আর কুকুর,
পিছন পথে অনিয়মে গড়ছে টাকার পুকুর।
দূর্নীতিবাজ আগাছাটা করলে দেশে ছাপ,
অমানবিক কষ্ট হতে সবাই পাবে মাপ।
সময় এখন জেগে ওঠার রুখতে তাদের নীতি,
হুংকাতে সব প্রেতাত্মাদের জাগাও সবে ভীতি।
তাক ধিনাধিন বাজনা দিয়ে করলে তাদের তাড়া,
বাংলাদেশের আনাচ কানাচ পড়বে এবার সাড়া।
জুতা তুলে মারো মুখে ময়লা মাখায় নিয়ে,
ঘুস দিওনা দিও কালি ন্যাড়া করে দিয়ে।
রফিস সালাম মতিউরের নাম কেনো যায় ভুলে,
দূর্নীতিবাজ তাড়াও এবার সবাই আওয়াজ তুলে।

741total visits,1visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply