নারীতেই ব্যবধান

নারী পুরুষ সবাই সমান দীপ্ত স্লোগানে,
মুখরিত আকাশ বাতাস দেশের সকল খানে।

জ্ঞানী গুণী দিচ্ছে ভাষণ সবার সামনে এসে,
আমি দিলাম তুমিও দাও মাকে ভালোবেসে।

প্রশ্ন করি সেই জ্ঞানীদের আসেন যদি কাছে,
নারীর মাঝেই সমানধিকার দেশের কোথাও আছে?

একনারীকে সামনে রেখে চরিত্রহীন বলায়,
পড়ল ফাঁসি নারী জাতির সম্মানিত গলায়।

আলোচনায় নাওয়া খাওয়া সেদিন সবাই ভুলে,
বিচার দাবি জ্ঞানী গুনি আনলো সেদিন তুলে।

অন্য যেদিন ধর্ষিত হয় চার সন্তানের মায়ে,
শত শত আঘাত চিহ্ন দেখেও তারি গায়ে।

গোল টেবিল বা লম্বা টুলে জ্ঞানীর হয়না আসন,
ধর্ষিতার ঐ ব্যথার কথায় দিতে একটু ভাষন।

নারী পুরুষ ভাবেন পরে নারীর কথাই শুনি,
গরীব এবং ধনী নারী সমান কোথায় গুণী?

কোথাও তো নাই সমান গলা তাদের অধিকারে,
গরীব নারী ধর্ষিতা তাই থাকেন নির্বিকারে।

ধনী হলে ঐ নারীটি বলতেন গলা তুলে,
নারীর মাঝে এই ভেদাভেদ কেউ কি যাবে ভুলে?

যে নারীরা শিক্ষিত আর দপ্তরে দেয় সেবা,
তাদের আছে সিকিউরিটি জানে না তা কেবা।

যে নারীরা শ্রমিক আজি বাংলাদেশের তরে,
তাদের জন্য সিকিউরিটি কে ব্যবস্থা করে?

এই নারীদের চলার পথে আছে হাজার বাঁধা,
কারো পথে লাল গালিচা কারো পথে কাদা।

কারো পিছে হাজার পুলিশ কারো পিছে রুহুল,
এসব কথা হচ্ছে প্রচার প্রমান আছে বহুল। নারী জাতি মায়ের জাতি ধনী গরীব ভুলে,
তাদের কারোর সম্মান হানি বলুন গলা তুলে।

684total visits,1visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply