বৈশাখ অনুষ্ঠান কি সার্বজনীন ?

যে দেশেতে নব্বই ভাগই মানুষ মুসলমান,
সকল প্রকার সমাবেশে তারাই জাগায় প্রাণ।

বৈশাখ দিনের প্রথমে যে মঙ্গল শোভা যাত্রা,
কাদের রীতি কৃষ্টি সেথায় যোগ করে দেয় মাত্রা?

শ্রী কৃষ্ণের-ই জন্মদিনে শোভাযাত্রা হয়,
মোহাম্মদ(সঃ)-এর জন্মদিনে কোথাও মিছিল নয়।

ঢাকের বাদ্য ঢোলের আওয়াজ স্যাক্সোফোনের সুর,
দেব দেবীদের বাহক গুলোর লাইন বহুদূর।

মঙ্গলের-ই প্রতীক পেচা রামের হনুমান,
দূর্গা দেবীর বাহক সেথায় সিংহর মুখোশ খান

রংয়ের খেলা সবাই জানে সারা বিশ্বময়,
মুসলমানের ধর্মে কোথাও এমন রীতি নয়।

ঢাক ঢোল রয় মন্দিরে আর মোমবাতি গীর্জায়,
মুসলমানের রীতি বলো পালন হয় কোথায়?

হয় কি সেথায় হাম নাদ আর কোরান তিলাওয়াত,
মুফতি হাফেজ কারীরা কি যাচ্ছে তাদের সাথ ?

উত্তর যখন সবার কাছে না এর মাঝে রয়,
এই অনুষ্ঠান কেমন করে সার্বজনীন হয়?

হোকনা এমন হাজার হাজার মুখোশ অনুষ্ঠান,
যার রীতি সেই তেমন করেই গাক তাহাদের গান।

মুসলিম হলো শান্তির ধর্ম মুখে তাকবীর রয়
মসজিদ গিয়ে নীরাবতায় সিজদায় নত হয়।

শুধু শুধু মুসলমানের নামটি করে যোগ,
কেনো এমন বিদাত কাজের দিচ্ছো অভিযোগ?

—সমাপ্ত—

601total visits,1visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply