মানুষ হও

বড় কেহ হয়না খোকা
বড় কেহ হয়না,
হাজার সনদ করলে জড়ো
বড় তাকেই কয়না।

বিবেক ধ্বসা বালুচরে
গড়লে গর্ব খানি,
একনিমিষেই মিশবে সবি
অতল গর্ভে টানি।

শকুন উড়ে মেঘ ছুঁয়ে যায়
ময়না থাকে ডালে,
উচ্চে উঠেও থাকে শকুন
খারাপ চিরকালে।

সৎ আদর্শ নৈতিকতা
ভাসায় কালের জলে,
যাচ্ছ নিয়ে দুহাত ভরে
হীনের গহীন তলে।

ছুঁচা কুকুর সকাল দুপুর
খেঁচকা তাড়া খেয়ে,
নির্লজ্জ সে আসে ফিরে
দুদিন দূরে যেয়ে।

উদারতার দেয় সে প্রমাণ
প্রাণের হুমকি নিয়ে,
বিজ্ঞরা কি করছে বরণ
তাদের পুষ্প দিয়ে?

যাঁকে তাকে বাপ মা ডেকে
ভাইয়া কিংবা বোন,
খ্যাতির লোভে ছোটে এমন
নাই আর কোনো জন।

সেই অর্জনে গর্ব করে
ছুঁড়ছো বিষের তীর!!
সূর্য উঠে নিশির সবি
হচ্ছে বাহির ধীর।

অহংকারীর মুখটা যদি
চিনে রাখতে চাও,
সব ফেলে আজ দ্রুত পায়ে
আয়নার কাছে যাও।

তোমার পিছন আলগা আছে
বল্গাহরিণ মতো,
চোখটা বুজে দেখো সনদ
সেথায় হীনের ক্ষত।

মানুষ নামের শব্দে প্রথম
মান-এর কথা পাবে,
তাকে দিলে জলাঞ্জলি
ঠাট্টা হেসে যাবে।

করুনা নয় বিষ্ময় করে
নিজের মেধার ভারে,
বড় হলেই তখন মানুষ
বড় বলে তারে।

পরগাছাতে চেয়ে দেখো
দেখতে কেমন তাজা,
মরুর বুকে নূজ্য তরু
নিজেই আসল রাজা।

করুণাতে পরের দানে
দুহাতে যা পাও,
গঙ্গাতে দাও জলাঞ্জলি
সব কিছুটা ফাও।

গর্ব করো শুধুই তখন
নিজ ক্ষমতার গুণে,
পাবে যখন বাবুই বাসা
কষ্ট করে বুনে।

অহংকারের মিথ্যা মোহে
আর না পড়ে রও,
এই অনুরোধ সবার আগে
আসল মানুষ হও।

—সমাপ্ত–

734total visits,1visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply