শিক্ষকতা

শিক্ষকতায় ভাবছে কেহ শাসন করার পেশা,
ছড়ি ধরে ছাত্র মারার কমছে না তার নেশা।
জ্ঞান সাধনায় অনিহাটা বাড়ছে দিনে দিনে,
সব কিছুতেই পটু কিন্তু শিক্ষা দেওয়া বিনে।

শেখানো নয় সময় পারের পেশায় এসে তারা,
বেঞ্চের মাথায় পাটা তুলে ঘুমে আত্মহারা।
কোমল মতি কী আর বোঝে এই বয়সে নিজে,
বসে বসে দেখে শুধু করছে স্যারে কী যে।

চাকরি তো কেউ দেয়না তাদের পায়না কষ্ট করে,
নিজের জায়গায় স্কুল গড়ে স্যার সেজেছে পরে।
না আছে যার শিক্ষা দেবার নূন্যতম নীতি,
ছাত্র কে তাই না পড়িয়ে দেখায় শুধু ভীতি।

ছাত্র কিছু জিজ্ঞাসিলে খায় সে ধমক ঝাড়ি,
উত্তর হীনা ভয়ে ছেলের কাঁপে পেটের নাড়ী।
পরিবারের গল্পে কাটায় সময় প্রতি দিনে,
অনুতপ্ত আসে না তার নৈতিকতার ঋণে।

পাঠ্যবইয়ের গল্পটা নয় স্যারের গল্প জেনে,
বছর শেষে ব্যার্থ বেশে ভাগ্যকে নেয় মেনে।
এই দুনিয়ায় বাবা মায়ের পরেই যাদের খ্যাতি,
শিক্ষকতার সেই পেশাতে চিন্তিত আজ জাতি।

নৈতিকতার স্খলনে বিদ্যালয়ে ভীতি,
ছাত্রীরা হয় ধর্ষিতা আর থামছে না এই রীতি।
চুরুট বিড়ির নেশার মজা গুরুর সাথে নিলে,
কোন সে শিক্ষা পাবে শিষ্য মদ পেয়ালা গিলে?

শিক্ষাকতা নয় যে সোজা খুব কমে হয় খাঁটি,
শিক্ষক হবে উদারতায় আদর্শের এক ঘাঁটি।
তার দ্বারা না কভু জেনো একটি জীবন ঝরে,
তারি দানের জ্ঞানের আলো জ্বলবে প্রতি ঘরে।

নিজের পোশাক খাবার চলন কথা বলার ভঙ্গি
শিষ্যরা সেই রীতি নীতি বানায় জীবন সঙ্গী ।
শিক্ষা দেবার কৌশল এবং মুখের মিষ্টি হাসি,
এসব দেখে আগায় তারা স্যারকে ভালোবাসি।

শ্রদ্ধা এবং ভক্তিতে স্যার সবার মাথার তাজ,
কিছু স্যারের লোভ লালসায় সেথায় ভাটা আজ।
যার ভুমিকায় গড়তে থাকে জাতির আশার আলো,
সকল বাঁধার পরেও তাকে থাকতে হবে ভালো।

নীতি হীনা স্যাররা জানুক পথ রয়েছে খোলা,
গড়তে জাতি বাঁধা হয়ে জল না করুন ঘোলা।

—সমাপ্ত—

465total visits,1visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply