সংগোপনে

ভাগ্যে পেলাম পুড়া কপাল দোষ দেবো কি করে,
মন নিয়েছে উজাড়ে যে রাখলো না সে ধরে।

নিয়তির ঐ ভেলায় ভেসে এসে অচিন দেশে,
বন্দী হয়ে লোহার খাঁচায় আছি কাঙ্গাল বেশে।

মন কাঁদে আজ যাকে ভেবে সে যে গেছে ভুলে,
ভাবতে সেসব দমকা হাওয়ায় হৃদয় ওঠে দুলে।

আঁখি বুজে দেখি তোমায় তুমি নিঠুরিয়া,
ভাবলে নাকো কষ্টে থাকে তোমার মিষ্টি প্রিয়া।

কত সুখের স্বপ্ন এঁকে রংধনুর ঐ রঙে,
বলতে কানে ফিসফিসিয়ে থাকবে আমার সঙ্গে।

বুঝতে তুমি দূরে থেকে প্রিয়ার আকুলতা,
আসতে ছুটে গয়না করে দিয়ে স্বর্ণ লতা।

আমার চোখের অশ্রু তোমার বন্যা দিতো মনে,
ভাসতে তুমি নীড় হারিয়ে ছোট্ট দুখের ক্ষণে।

কেমন করে হলে পাষান মনে দিলে তালা?
সইতে যে আর পারি নাকো এহেন নরক জ্বালা।

অচিন দেশে বন্দী দেখো বন্দী তোমার সাথী,
নিশির বুকে জাগি একা তোমায় ভেবে ব্যথি।

নেইত কেহ আপন তেমন বোঝে অশ্রুর মূল্য,
কূল হারা এক নাবিক হীনা কিশতি সমতুল্য।

চলছে জীবন অবহেলায় এমনি ভেলায় ভেসে,
হলোনা কেউ মুক্ত করে আমায় ভালোবেসে।

দুখী আমি চলন আমার দুখের নদের মাঝে,
চোখ বুজিলে দেখি তোমায় শত কাজের ভাঁজে।

কেউ জানেনা জানে হিয়ার শুকনো মরুভূমি,
নিঃশ্বাসের ঐ তপ্ত বায়ুয় মিশে আছো তুমি।

জানবেনা কেউ কোনোদিনও কোনো পশু পাখি,
তোমার প্রেমের দুখের ঢেউয়ে ভেজে আজও আঁখি।

হায়রে আমার সাধের জীবন শখের স্বপন ঘুড়ি,
মুক্ত আকাশ রেখে খাঁচায় অভিনয়ে উড়ি।

553total visits,1visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply