সুখের সন্ধানে

বিবেক বাবুর ঘাড়ে বসে খাচ্ছে তারি ভাই,
সঙ্গে আছে বাবা ও মা কষ্টের সীমা নাই।
চাকরি ছোটো ন্যায়ের পথে বেতন কড়ি কম
বোনটি সহ পাঁচ সদস্যের চাপে ফুরায় দম।

বোনের এখন বিয়ের বয়স ভাই পড়ে স্কুলে,
বিবেক ভাবে সুখী সবাই তাহার কষ্ট ভুলে।
সন্ধ্যায় ফিরে রোজই দেখে হাসছে বাবা মা,
খুশি এতই ভায়ে বোনে নাই যে সীমানা।

বিবেক ভাবে বলদ আমি খাটি সারা দিন,
অকর্মারা বাড়ি বসে বাজায় সুখের বীণ।
ফিরি যখন কাজের শেষে কাছে আসে সব,
ভীড়ে সবাই তুলতে থাকে সুখের কলরব।

মায়ের চোখে স্বপ্ন পূরণ,বোনের কাছে ভাই,
বাবার মতই শান্তি ছায়া যার তুলনা নাই।
আঁচল খানা তুলে মায়ে মুছায় মুখের ঘাম,
মায়ের স্নেহে বিবেক কভু পায়না খুঁজে দাম।

হঠাৎ বিবেক বাড়ি ছাড়ে সুখের পেতে খোঁজ,
বাবা মা আর ভাইয়ে বোনে তার তলাশে রোজ।
দিনে দিনে বছর গিয়ে মারা গেলো মা,
অপেক্ষাতে ধুকছে বাবা ছেলে ফিরলো না।

বোনে পরলো বেনারশি বরে ভ্যান চালক,
ভাইটা আজো কম বয়সী রইছে সে বালক।
বিবেক এখন টাকাওয়ালা অসৎ পথে আয়,
জমিদারি বেশ ভুসা তার কাজে যখন যায়।

গাড়ি বাড়ি সবি আছে আছে কাজের লোক,
তবুও তার মনের কোনে অজানা এক শোক।
অপেক্ষায় আজ থাকে যারা নয়তো চেনা মুখ,
মায়ের আঁচল মনে এসে ফাকা লাগে বুক।

বোনের হাসি সুখের চাবি বলছে এখন মন,
কোথায় তারা কেমন আছে হাসি খুশির বোন।
ভাইটা ছিলো ছোটো শিশু উঠলে গায়ের পর,
রেগে গিয়ে দিতো ধমক দূরে গিয়ে মর।

সেসব স্মৃতি মনের কোনে ঘনায় কালো মেঘ,
অগোচরে বাদল ধারায় বাড়ায় ঝড় বেগ।
ক্ষণে ক্ষণে বজ্রপাতে চমকে ওঠে গা,
এই দুনিয়ায় স্বজন হারা নিজেই অভাগা।

বাবার ঘরে থাকতে বিবেক কিনত পুটি পুই,
দিন যেতো তার গভীর ঘুমে মাটির পরে শুই।
কষ্ট হলেও চারিধারে শুনত হাসির রোল,
কাড়ি কাড়ি টাকায় এখন শোনে নষ্ট বোল।

বাড়িতে আর হয়না রান্না চাইনিজ এনে খায়,
সব্জি খাবার আনলে বাসায় বউতে বলে হায়।
কোন অধমের হাতে আমার ভাগ্য পেলো ঠাঁই,
এমন কৃপণ দুচোখ মেলে কোথাও দেখি নাই।

হাত খরচের কমতি হলে ঘরে ওঠে ঝড়,
সুখের খোঁজে স্বজন ছাড়ার ভিত্তি নড়বড়।
বাইরে হতে ফিরলে বাসায় চাকর খোলে দ্বার,
বউটা থাকে নিজের ঘরে দেখেন প্রতি বার।

জুতা খুলতে চেয়ার পেতে ভাবে বিবেক আজ,
সুখের সময় অস্তে আমার নামছে বুঝি সাঁঝ।
নেশা লাগা বিজলি আলোয় দীপ্ত চারিধার,
তবু লাগে মনের মাঝে শুধু হাহাকার।

দুই চোখেতে শ্রাবন ধারা অবাধ ধারায় বয়,
অভাগাদের জীবন বুঝি এমনতরো হয়।
সুখকে নিজেই নষ্ট করে আপন পায়ের তল,
ধরছে সদাই সুখে থাকার নানান রকম ছল।

বিবেক এবার ফিরলো বাড়ি নিয়ে ধনীর সাজ,
যারা দেখে খুশি হবে নেই যে তারা আজ।
মরছে বাপে দুদিন আগে ফাকা বাড়ি ঘর,
সুখের বাগের সেই বাড়িটা নিঃস্ব বালুচর।

দুপুর গড়ে বিকেল হলো বিবেক ফেরার পর,
যায়না শোনা মায়ের হাসি বোনের মিষ্টি স্বর।
কেউ মোছেনা আঁচল ধরে বড় খোকার মুখ,
হারায় গেছে স্মৃতি গুলো এই দুনিয়ার সুখ।

860total visits,1visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply