দূর্ণীতি

দূর্ণীতি আর ঘুষটা দেখে থাকবে যতই চুপ,
রান্না হবে তোমার ঘরে খাবে তারাই স্যুপ।
তুমি কি ভাই কামার কুমার জেলে কিংবা তাঁতী?
তবে শোনো তুমি এখন বঞ্চিত এক জাতি।

গড়তে দালান দূর্ণীতিতে দিচ্ছে যখন বাঁশ,
ভাবছে তারা চালাক অতি আমরা চিবাই ঘাস।
বালিশ কেনার নালিশ এখন সারা দেশের পর,
এই দেশেতে টাকা মেরে বিদেশ বানায় ঘর।

বিমান, চুলা, যন্ত্রপাতি কেনার করে নাম,
ডান হাতেতে অর্থ গুণে জমায় রাখে বাম।
এমনি করে দালান ব্রীজ ধ্বসলে তাড়াতাড়ি,
গড়তে আবার করটা নিতে করবে বাড়াবাড়ি।

ভাবতে পারো তুমিতো ভাই দিচ্ছো নাতো কর,
দিচ্ছো ঠিকই হলুদ লবন কিনতে দোকান ঘর।
মধ্য ভুগি দূর্ণীতিবাজ ঘুষখোরেরা মিলে,
গরীব দুখীর করের টাকা খাচ্ছে সদাই গিলে।

ভুঁড়ি তাদের আকাশ ছোঁয়া দেখছে না আর মাটি,
দূর্ণীতিতে যোগান দিতে সংসারে বয় ভাটি।
বাজার গিয়ে দূর্ণীতিবাজ ছোটো খাটোও মাছ,
এতো বেশি টাকায় কেনে যায়না করা আঁচ।

বাজার দরে লাগে আগুন গরীব পুড়ে শেষ,
দূর্ণীতিবাজ আস্ত মোরগ চিবিয়ে খায় বেশ।
ষোলো কোটির এই দেশেতে মাত্র ক’জন লোক,
আর কত কাল দেশ মাতাতে ছড়ায় যাবে শোক।

জাগতে হবে যার মতো সেই আর দিব না ঘুষ,
রুখতে হবে দূর্ণীতিটা রেখে সবাই হুশ।

—সমাপ্ত—

994total visits,2visits today

এস এম মঞ্জুর রহমান

Leave a Reply